Home / Uncategorized / প্রবাসী স্বামীকে গলাকেটে হত্যাচেষ্টা, সন্তানসহ প্রেমিকের সঙ্গে উধাও স্ত্রী !

প্রবাসী স্বামীকে গলাকেটে হত্যাচেষ্টা, সন্তানসহ প্রেমিকের সঙ্গে উধাও স্ত্রী !

ফরিদপুরের চরভদ্রাসন উপজেলার কারিকর ডাঙ্গী গ্রামের বাহরাইন প্রবাসী ইউসুফ প্রামাণিক (৩৫) তার সাত বছর বয়সী ছেলেকে ফিরে পেতে চান। ছেলেকে ফিরে পেতে তিনি স্থানীয় ব্যক্তিবর্গ ও সাংবাদিকদের দ্বারস্থ হয়েছেন।বুধবার দুপুরে চরভদ্রাসন উপজেলা প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করে বাহরাইন প্রবাসী ইউসুফ প্রামাণিক বলেন, ছেলেকে ফিরে পেতে আপনাদের সহযোগিতা চাই। গত ২৫ দিন ছেলেকে দেখি না। ছেলে কোথায় আছে জানি না। আমার ছেলেকে এনে দেন।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, ইউসুফ প্রামাণিক বাহরাইনে চাকরি করার সুযোগে তার স্ত্রী চম্পা খাতুন (৩২) আপন খালাতো ভাই শেখ রুবেলের সঙ্গে পরকীয়া সম্পর্কে জড়িয়ে পড়ে। প্রায় দুই বছর যাবৎ তারা মেলামেশা করে আসছে। প্রায় আড়াই মাস আগে স্বামী ইউসুফ প্রামাণিক ছুটিতে বাড়ি ফিরে আসেন। বাড়িতে এসে স্ত্রীর পরকীয়ার বিষয়টি জানতে পারেন এবং স্ত্রীকে কড়া শাসনের মধ্যে রাখেন। গত ১৫ জুন দিবাগত গভীর রাতে স্ত্রী চম্পা খাতুন হঠাৎ বিছানা থেকে উঠে ঘরের দরজা খুলে দেয়। এ সময় পরকীয়া প্রেমিক শেখ রুবেল হাতে ধারালো ছুরি নিয়ে ঘরে ঢুকে ইউসুফের গলা বরাবর কুপিয়ে জখম করে। পুনরায় আঘাত করতে গেলে উভয়ের মধ্যে ধস্তাধস্তি হয়। এ সময় ইউসুফের চিৎকারে স্থানীয়রা ছুটে এলে পরকীয়া প্রেমিক রুবেল দৌড়ে পালিয়ে যায়। পরে আহত ইউসুফকে প্রথমে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পরে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন থাকার পর এখন তিনি কিছুটা সুস্থ।

এদিকে ইউসুফ যখন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন তখন স্ত্রী চম্পা খাতুন সাত বছর বয়সী শিশুপুত্র ওমর ফারুককে সঙ্গে নিয়ে পরকীয়া প্রেমিক রুবেলের হাত ধরে উধাও হয়ে যায়। ২৪ দিন চিকিৎসাধীন থাকার পর ইউসুফ বাড়িতে এসে স্ত্রী চম্পা খাতুন ও শিশু পুত্র ওমর ফারুককে বিভিন্ন স্থানে খোঁজাখুঁজি শুরু করেন।প্রবাসী ইউসুফ প্রামাণিক বলেন, বাহরাইন দেশে পাঁচ বছর চাকরীকালীন সময়ে যা রোজগার করেছি সব টাকা স্ত্রীর নামের ব্যাংক অ্যাকাউন্টে পাঠিয়েছি। এমনকি তার জন্য আলাদা বাড়ি করে দিয়েছি। সে যা বলেছে আমি তাই করেছি। কিন্তু সে আমার সঙ্গে কি করলো?

এছাড়াও তিনি আরও বলেন, যে স্ত্রী তার স্বামীকে হত্যার চেষ্টা করে সেই স্ত্রী আমার দরকার নেই। ওর মতো স্ত্রীর সঙ্গে আমি সংসার করতে চাই না। আমি আমার শিশু পুত্রকে ফিরে পেতে চাই। এ বিষয়ে চরভদ্রাসন থানায় একটি মামলা দায়ের করেছি।মামলার তদন্ত কর্মকর্তা চরভদ্রাসন থানা পুলিশের উপপরিদর্শক (এসআই) শাহীনুর রহমান জানান, নিখোঁজ পরকীয়া প্রেমিক যুগলকে গ্রেফতারের জোর চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি। তারা এলাকায় নেই, সম্ভবত ঢাকায় অবস্থান করছে।

ঢাকা-বেনাপোল রুটের দ্রুতগামী ট্রেনের নামকরণ করলেন প্রধানমন্ত্রী, উদ্বোধন বুধবার
রাজধানী ঢাকা থেকে ঈশ্বরদী জংশন ও যশোর হয়ে বেনাপোল স্থলবন্দর পর্যন্ত চালু হচ্ছে দ্রুতগামী ট্রেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ট্রেন সার্ভিসটির নাম চূড়ান্ত করেছেন ‘বেনাপোল এক্সপ্রেস’।আগামী ১৭ জুলাই, বুধবার প্রধানমন্ত্রী ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে ঢাকা থেকে এ ট্রেন সার্ভিসের উদ্বোধন করবেন বলে রেলপথ মন্ত্রণালয় সূত্রে জানানো হয়েছে।আসন্ন ঈদুল আজহার আগেই দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের মানুষ এই ট্রেনে চলাচলের সুবিধা ভোগ করতে পারবেন। এ ট্রেনে বগি থাকবে ১২টি। ৮৯৬ আসনের ট্রেনটি প্রতিদিন বেনাপোল স্টেশন থেকে ছেড়ে যশোর, ঈশ্বরদী জংশন ও ঢাকা বিমানবন্দরে যাত্রী ওঠা-নামা করার জন্য সাময়িক বিরতি দিয়ে কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশনে শেষ হবে।

রেল মন্ত্রণালয় সূত্র জানায়, প্রাথমিকভাবে ট্রেনটির জন্য তিনটি নাম প্রস্তাব করা হয়েছিল। সেগুলো হলো- ‘বেনাপোল এক্সপ্রেস’, ‘বন্দর এক্সপ্রেস’ ও ‘ইছামতি এক্সপ্রেস’। এদের মধ্যে ‘বেনাপোল এক্সপ্রেস’ নামটি চূড়ান্ত করেন প্রধানমন্ত্রী।বুধবার উদ্বোধনের পর বেলা সোয়া একটায় ট্রেনটি বেনাপোল থেকে ঢাকার উদ্দেশে ছেড়ে আসবে।বেনাপোল থেকে এ ট্রেনের শোভন চেয়ারের টিকিটের দাম ৫০০, এসি (শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত) চেয়ার ১০০০ ও এসি কেবিনের দাম ১২০০ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে।

ইন্দোনেশিয়ার পিটি ইনকা তৈরি এ ট্রেনের কামরাগুলোতে বিমানের মতো বায়ো-টয়লেট সুবিধা রয়েছে। আসনগুলোও আধুনিক। প্রতিদিন বেলা সাড়ে ১১টার দিকে ট্রেনটি বেনাপোল থেকে ঢাকার উদ্দেশে ছেড়ে যাবে। আবার রাত সাড়ে ১২টার দিকে ঢাকা থেকে বেনাপোলের উদ্দেশে ছেড়ে আসবে। প্রতিদিন সকাল ৮টার মধ্যে ট্রেনটি বেনাপোল বন্দরে পৌঁছাবে। ফলে ভারতগামী যাত্রীদের যাতায়াতে বেশ সুবিধা হবে।

১১ জুলাই ২০১৯, ০৩:২৪ PM

About admin

Check Also

মুসলিম রীতি মানেননি বলেই অপুকে তালাক শাকিবের!

শাকিব খানকে পেতে ধর্ম পরিবর্তন করে অপু বিশ্বাস হয়েছিলেন অপু ইসলাম খান। কিন্তু তাতেও শেষরক্ষা …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *